আমার সাথে

Personal Blog of Zonayed
কম্পিউটার সাইন্স টিপস এন্ড ট্রিক্স বাংলা সফট স্কিল

অনলাইনে ফ্রীতে নিজের ওয়ার্কশপ তৈরী করুন আর কাজ করুন যেকোনো জায়গা থেকে

ফেব্রুয়ারী 6, 2018

আমরা যারা ভার্সিটিতে ল্যাবে প্রোগ্রামিং, এটা-সেটা প্র্যাক্টিস করি, সাধারণত একেক সময় একেক পিসিতে কাজ করতে হয়, দেখা যায় যে আই ডি ই তে কাজ করতেছি সেটা সুবিধার মনে হচ্ছে না। নিজের করা কাজ সেইভ করতেও ঝামেলা। অনেক সময় করাই হয় না। একদিনের কাজ পরেরদিন নাই।

আবার লিনাক্স প্রোগ্রামিং করার জন্য অনেক ভালো। পাওয়ারফুল কমান্ড লাইন দিয়ে যেকোনো কিছু জাস্ট কমান্ড দিয়েই করা যায়। কিন্তু নিজের ডিভাইসে উইন্ডোজ বাদ দিয়ে লিনাক্সে সুইচ করা অনেকে ঝামেলার মনে করে। কিন্তু কেমন হয় যদি আপনার আলাদা একটা ওয়ার্কশপ থাকে, যেটা লিনাক্স এ চলবে এবং আপনি সবকিছু করতে পারবেন এটাতে। আবার সেটা যদি যেকোনো যায়গা থেকে অ্যাক্সেসবল হয় তাহলে কেমন হয়? হ্যা আজকে আমি ঐরকম একটা ওয়ার্কশপ নিয়েই কথা বলবো। এই ওয়ার্কশপটি অফার করা হয়েছে ক্লাউড নাইন থেকে।

ক্লাউড নাইনের এই ওয়ার্কশপ উবুন্টুতে চলে। সুতরাং লিনাক্সের সব কমান্ডই এখানে কাজ করবে। চাইলে যেকোনো প্যাকেজ ইন্সটল করতে পারবেন কমান্ড লাইনের সাহায্যে। কোড এডিটর আছে, সব ধরনের সুবিধাই পাবেন এই কোড এডিটরে। আর অবসশ্যই টার্মিনাল আছে। চাইলে যত ইচ্ছা কোড এডিটর উইন্ডো বা টার্মিনালের উইন্ডো খুলে কাজ করতে পারবেন।

ক্লাউড নাইন একটা সার্ভারও অফার করে। মানে আপনি এখানে আপনার ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন রান করতে পারবেন। পাইথন বা জাভাস্ক্রিপ্ট অ্যাপ্লিকেশন, রুবি, রেইলস সব অ্যাপ্লিকেশন রান করাতে পারবেন, তবে একই টাইমে একটা মাত্র অ্যাপ্লিকেশন চলবে। আর ওয়ার্কশপ এ অবশ্যই অ্যাক্টিভ থাকতে হবে অ্যাপ্লিকেশন রানিং রাখার জন্য। এটা জাস্ট শিখার জন্য যাতে কাজে লাগে সেভাবে সিস্টেম করা।

পিএইচপিলাইট অ্যাডমিন, এস কিউ এল নিয়েও কাজ করার জন্যে এখানে সবকিছু আছে। মানে আপনার অনলাইনে আরেকটা কাজের স্পেস এবং সেটা পার্মানেন্ট। কাজ করে ফাইল গুলাও সেইভ করা থাকবে, চাইলে গিটাবে বা বিটবাকেটে পাঠায় দিতে পারবেন। চাইলে যেকোনো অ্যাপ্লিকেশন ইন্সটল করতে পারবেন। আর এজন্য ইন্টারনেট স্পীড বেশি দরকার নাই। আপনার কোনো প্যাকেজ ইন্সটল দেওয়া লাগলে সেটা ক্লাউড নাইনের ইন্টারনেটের স্পীডের উপর ডিপেন্ড করবে। আপনার স্পীড জাস্ট ওয়ার্কশপ রান করানোর মতো হলেই হবে।

আপনি যখনি কাজ করবেন যেখানে, যে ডিভাইসেই হউক জাস্ট লগিন করে কাজ করা শুরু করতে পারবেন আর কাজ শেষ হয়ে গেলে লগআউট করে ফেলবেন। ব্যাস! আপনি এখানে রেগুলার কাজ করতে থাকলে কাজের সিকুয়েন্সও ঠিক থাকলো আর আপনার কোনো ফাইলও হারাবে না। আর সবচেয়ে বড় কথা কাজ করতে কম্ফোর্টেবল ফীল করবেন। নোটঃ বাইরের কম্পিউটারে বা ল্যাবে পিসিতে লগিন করলে অবশ্যই ইনকগনিটো/প্রাইভেট মুডে ব্রাইজার ওপেন করবেন। সবসময়ও এই অভ্যাস রাখা ভালো।

তাইলে আর দেরি কেন আজকেই আপনার একটা অ্যাকাউন্ট নিয়ে নিন। কিন্তু সমস্যা আছে। ক্লাউড নাইন আর নতুন ইউজার নিচ্ছে না। তবে আপনি চাইলে গিটাবে বা বিটবাকেটে অ্যাকাউন্ট করে এখান থেকে গিটাব বা বিটবাকেট যেটাতে অ্যাকাউন্ট করছেন বা আছে সেটা সিলেক্ট করে সেটা দিয়ে লগিন করেন। আরেকটা সিস্টেমে করতে পারেন। আপনার যদি এখানে অ্যাকাউন্ট থেকে থাকে তাইলে আপনি এখান থেকে edX সিলেক্ট করে এডেস্কের অ্যাকাউন্ট দিয়েও লগিন করতে পারবেন।

আমার পোস্ট ভালো লেগে থাকলে অবশ্যই আপনার মন্তব্য জানাবেন 🙂

হ্যাপী প্রোগ্রামিং <3

Comments

comments